বাংলা একাডেমি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩rd মার্চ ২০২২

আজ ১৮ই ফাল্গুন ১৪২৮/৩রা মার্চ ২০২২ বৃহস্পতিবার অমর একুশে বইমেলার ১৭তম দিন।


প্রকাশন তারিখ : 2022-03-03
আজ ১৮ই ফাল্গুন ১৪২৮/৩রা মার্চ ২০২২ বৃহস্পতিবার অমর একুশে বইমেলার ১৭তম দিন। মেলা চলে বিকেল ৩:০০টা থেকে রাত ৯:০০টা পর্যন্ত। আজ নতুন বই এসেছে ১০৮টি। 
আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান : বিকাল ৪:০০টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় স্মরণ : মোহাম্মদ আবদুল কাইউম ও বশীর আল্হেলাল শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন হাসান হাফিজ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মোঃ মুমিত আল রশিদ এবং পারভেজ হোসেন। সভাপতিত্ব করেন মোরশেদ শফিউল হাসান।
 
প্রাবন্ধিক বলেন, মিতভাষী সংযত ও সংহত চরিত্রের অধিকারী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবদুল কাইউম ছিলেন নির্মোহ ও নির্লোভ মানুষ। বিশিষ্ট নজরুল গবেষক, অভিধানবিদ, পুরনো বাংলা পাণ্ডুলিপি বিশেষজ্ঞ ছিলেন তিনি। নিরহঙ্কার, সহজ—সরল মানুষটি শিক্ষক হিসেবে এক সম্মানজনক স্থান করে নিয়েছিলেন। অন্যদিকে বিশিষ্ট গবেষক ও জীবনবাদী কথাশিল্পী বশীর আল্হেলাল একাধারে গবেষক, অনুবাদক, কথাশিল্পী, ইতিহাসবিদ, শিল্পসাহিত্যিক। তিনি আজীবন সাহিত্য—সংস্কৃতির সাধনায় ছিলেন নিবেদিতপ্রাণ। ভাষা—আন্দোলন বিষয়ে তাঁর গবেষণাগ্রন্থ ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস পাঠক গবেষকদের কাছে অতি মূল্যবান আকর গ্রন্থ হিসেবে সমাদৃত। 
 
আলোচকবৃন্দ বলেন, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবদুল কাইউম ছিলেন নিবেদিতপ্রাণ একজন গবেষক। গবেষণার নিজস্ব একটি জগৎ নির্মাণ করে নিজ কর্মের ভেতর নিবিষ্ট থেকেছেন সারাজীবন। বিশিষ্ট সাহিত্যসাধক বশীর আল্হেলাল জীবনের নিগূঢ়তাকে সাহিত্যে তুলে ধরেছেন। সমাজজীবনের বেদনা, পীড়ন, নিগ্রহ এসব তাঁর সাহিত্যে নতুন মাত্রিকতা লাভ করেছে। তাঁদের কাজের ব্যাপ্তি, গভীরতা ও মাত্রিকতার যথার্থ স্বীকৃতি দান একান্ত কর্তব্য। 
 
সভাপতির বক্তব্যে মোরশেদ শফিউল হাসান বলেন, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবদুল কাইউম ও কথাসাহিত্যিক বশীর আল্হেলাল দুজনেই ছিলেন নির্মোহ, নিভৃতচারী এবং একনিষ্ঠ গবেষক ও জ্ঞান—সাধক। নিজ নিজ ক্ষেত্রে তাঁরা দক্ষতার স্বাক্ষর রেখেছেন। তাঁদের জীবনী ও রচনাবলি প্রকাশ করে তরুণ সমাজের হাতে তুলে দিতে পারলে তা হবে আমাদের জন্য মঙ্গলজনক। 
লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের বই নিয়ে আলোচনা করেন মারুফ রায়হান এবং টোকন ঠাকুর। 
 
আজকের অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন কবি জরিনা আখতার এবং রহিমা আখতার কল্পনা। সংগীত পরিবেশন করেন খায়রুল আনাম শাকিল, লীনা তাপসী খান, সাজেদ আকবর, সালমা আকবর, কামাল আহমেদ, বিজন চন্দ্র মিস্ত্রী, শাহনাজ নাসরিন ইলা,  মো. হারুনুর রশিদ এবং সুমন মজুমদার। যন্ত্রাণুষঙ্গে ছিলেন বিশ্বজিৎ সরকার (তবলা), রবিনস চৌধুরী (কী—বোর্ড), নাজমুল আলম খান (মন্দিরা) এবং মো. মনিরুজ্জামান (বাঁশি)। 
 
আগামীকালের অনুষ্ঠান 
আগামীকাল ১৯ই ফাল্গুন ১৪২৮/৪ঠা মার্চ ২০২২ শুক্রবার অমর একুশে বইমেলার ১৮তম দিন। মেলা চলবে সকাল ১১:০০টা থেকে রাত ৯:০০টা পর্যন্ত। মেলায় থাকবে শিশুপ্রহর। সকাল ১১:০০টা থেকে বেলা ১:০০টা পর্যন্ত শিশুপ্রহর ঘোষণা করা হয়েছে। 
 
আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান : বিকাল ৪:০০টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে স্মরণ : গাজীউল হক ও সিকান্দার আবু জাফর শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন নাসির আহমেদ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন আলফ্রেড খোকন এবং তারেক রেজা। সভাপতিত্ব করবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আবুল মনসুর। 
সন্ধ্যায় রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।  
 
 
মোহাম্মদ আকবর হোসেন  
উপপরিচালক (চলতি দায়িত্ব)

Share with :

Facebook Facebook