বাংলা একাডেমি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩rd মার্চ ২০২২

আজ ১৭ই ফাল্গুন ১৪২৮/২রা মার্চ ২০২২ বুধবার অমর একুশে বইমেলার ১৬তম দিন।


প্রকাশন তারিখ : 2022-03-02
আজ ১৭ই ফাল্গুন ১৪২৮/২রা মার্চ ২০২২ বুধবার অমর একুশে বইমেলার ১৬তম দিন। মেলা চলে বিকেল ৩:০০টা থেকে রাত ৯:০০টা পর্যন্ত। আজ নতুন বই এসেছে ১১৪টি। 
আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান : বিকাল ৪:০০টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় স্মরণ : রশীদ হায়দার ও ফরহাদ খান শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মোজাফ্ফর হোসেন। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ইমতিয়ার শামীম এবং মনি হায়দার। সভাপতিত্ব করেন আনোয়ারা সৈয়দ হক। 
 
প্রাবন্ধিক বলেন, উদার ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার চেতনাই ছিল আমাদের মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম প্রেরণা। কিন্তু পঁচাত্তরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসচর্চাকে নানাভাবে দমিয়ে রাখা হয়। অসাম্প্রদায়িক ও সমতাভিত্তিক সমাজ গঠনের আদর্শ থেকে সরে আসতে থাকে শাসকগোষ্ঠী। এ সময় আবারও কলমযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়তে হয় আমাদের লেখকদের। এ পর্যায়ে দু’জন গুরুত্বপূর্ণ লেখক হলেন রশীদ হায়দার ও ফরহাদ খান। রশীদ হায়দারের যুদ্ধটা ছিল মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস—চর্চা ও এর চেতনা প্রতিষ্ঠার। অন্যদিকে ফরহাদ খান কাজ করেছিলেন বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির শুদ্ধতা নিশ্চিত করে একটি জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনের জন্য। 
 
আলোচকবৃন্দ বলেন, শিল্প, সাহিত্য ও জ্ঞান—বিজ্ঞানের নানা জটিল বিষয়কে সহজ  ও সাবলীল ভাষায় পাঠকের সামনে হাজির করেছেন লেখক রশীদ হায়দার ও ফরহাদ খান। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা—শাণিত একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন তাঁদের লেখনীর মধ্যে দিয়ে উঠে এসেছে। তাঁদের কর্মের ভেতর দিয়েই তাঁরা আমাদের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন। 
সভাপতির বক্তব্যে আনোয়ারা সৈয়দ হক বলেন, সৃজনশীল ও মননশীল লেখক রশীদ হায়দার ও ফরহাদ খানের সাহিত্য ও সৃষ্টিকর্ম আমাদের সাহিত্য ও জ্ঞানভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করেছে। বাংলা ভাষা ও দেশের প্রতি তাঁদের গভীর অনুরাগ নতুন প্রজন্মের ভেতর মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সুদৃঢ় করবে।  
 
লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের বই নিয়ে আলোচনা করেন ইসহাক খান ও মাসুম রেজা। 
আজকের অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন কবি মাসুদ পথিক এবং গিয়াসউদ্দীন চাষা। আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তিশিল্পী নাঈমা রুম্মান, পলি পারভীন এবং মিসবাহিল মোকাররাবিন। সাংস্কৃতিক পর্বে ছিল শাহাবুদ্দিন আহমেদ দোলনের পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘সুর সুধা সংগীতায়ন’—এর শিল্পীদের পরিবেশনা। সংগীত পরিবেশন করেন চন্দনা মজুমদার, শফি মন্ডল, আবদুল লতিফ শাহ, বিমান চন্দ্র বিশ্বাস, কৌশিক মজুমদার, সুমন চন্দ্র দাস, শেখ মিলন এবং শ্যামল কুমার পাল। যন্ত্রাণুষঙ্গে ছিলেন সঞ্জয় কুমার দাস (তবলা), অনুপম বিশ্বাস (দোতারা), ডালিম কুমার বড়–য়া (কী—বোর্ড), মো. হোসেন আলী (বাঁশি)। 
 
আগামীকালের অনুষ্ঠান 
আগামীকাল ১৮ই ফাল্গুন ১৪২৮/৩রা মার্চ ২০২২ বৃহস্পতিবার অমর একুশে বইমেলার ১৭তম দিন। মেলা চলবে বিকেল ৩:০০টা থেকে রাত ৯:০০টা পর্যন্ত।
আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান : বিকাল ৪:০০টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে স্মরণ : মোহাম্মদ আবদুল কাইউম ও বশীর আল্হেলাল শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন হাসান হাফিজ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন মোঃ মুমিত আল রশিদ এবং পারভেজ হোসেন। সভাপতিত্ব করবেন মোরশেদ শফিউল হাসান। 
সন্ধ্যায় রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।  
 
 
মোহাম্মদ আকবর হোসেন  
উপপরিচালক (চলতি দায়িত্ব)

Share with :

Facebook Facebook